ঢাকা থেকে জ্বর-সর্দি নিয়ে বাড়িতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু, দাফন করলেন পুলিশ

শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

নওগাঁর বদলগাছীতে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে সোহাগ হোসেন (২৩) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।
শুক্রবার (১২ জুন) সন্ধ্যা ৭টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

শনিবার (১৩ জুন) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। সোহাগ হোসেন গত সোমবার (৮ জুন) করোনা পরীক্ষার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে নমুনা তার দিয়েছিলেন। সে রিপোর্ট এখনও পাওয়া যায়নি।

সোহাগ হোসেন উপজেলার মিঠাপুর ইউনিয়নের ইসমাইলপুর গ্রামের মৃত গোলাম মোস্তফার ছেলে। তিনি ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন।

নিহতের চাচাতো ভাই মাহমুদুল হাসান জানান, ঢাকায় থাকা অবস্থায় সোহাগ হোসেন জ্বর ও সর্দিতে বেশ কিছুদিন ভুগছিলেন। ওই অবস্থায় গত রোববার (৭ জুন) বাড়িতে চলে আসেন। এর পরদিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে গিয়ে নমুনা দিয়ে আসেন। নমুনা দিয়ে আসার পর থেকে আরও
বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েন সোহাগ। শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় নেবুলাইজার করা হয়। কিন্তু তেমন উপকার পাওয়া যায়নি। এরপর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে যোগাযোগ করা হলে তাকে রাজশাহীতে নিতে বলা হয়।

শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় সোহাগকে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যা ৭টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

মাহমুদুল হাসান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জীবিত থাকা অবস্থায় কারও তেমন আগ্রহ দেখা যায়নি। কিন্তু মারা যাওয়ার পর অনেকের আগ্রহ দেখা
যায়।

এদিকে সোহাগ হোসেনের মরদেহ গাড়ি থেকে নামানো থেকে শুরু করে দাফন-কাফন যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালনা করেন বদলগাছী থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আরিফুল ইসলাম, উপ-পরিদর্শক (এসআই) সরোয়ার হোসেন এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কয়েকজন।

জানাজায় ইমামতি করেন মাহমুদুল হাসান। শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

বদলগাছী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আবু তাহের বলেন, যথাযথ নিয়ম মেনে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে। এছাড়া নিহতের পরিবারের সকলকে বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে। করোনা পরীক্ষার জন্য ওই পরিবারের সকলের নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

Author: editor

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *